• জাতীয়: করোনায় আরও ৬০ মৃত্যু, শনাক্ত প্রায় ৪ হাজার *** আরও ১ মাস বাড়লো ‘লকডাউন’ *** গ্লোবের করোনা টিকা 'বঙ্গভ্যাক্স' ট্রায়ালে শর্তসাপেক্ষে অনুমতি *** সংসদে সুন্দরবন রক্ষার আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী *** তিন মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৬ হাজার ৮০২ কোটি টাকা *** অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা অটোপাস হচ্ছে *** পরীমনির বিরুদ্ধে এবার ক্লাব ভাঙচুরের অভিযোগ *** সারাদেশ: সিলেটে একই পরিবারের তিনজনের মরদেহ উদ্ধার *** রামেক হাসপাতালে করোনায় ১৩ জনের মৃত্যু *** সারাবিশ্ব: গাজায় ফের ইসরায়েলের বিমান হামলা *** সোমালিয়ার সেনা ক্যাম্পে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১৫ *** খেলাধুলা: রোনালদো কাণ্ডে কোকাকোলার ক্ষতি ৩৪ হাজার কোটি টাকা ***ঘোষণা: সিটিজেন জার্নালিজমকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে নিউজফ্ল্যাশ৭১; জেলা/উপজেলা/ পৌরসভা থেকে সংবাদ পাঠাতে আগ্রহীরা শিগগিরই সিভি (CV) পাঠান এই মেইলে- [email protected] *** সবধরনের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন: https://www.newsflash71.com *** সংবাদ ও ভিডিও পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন: fb/newsflash71bd *** সব ধরনের ভিডিও চিত্র দেখতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল ভিজিট করুন: youtube.com/newsflash71 ***


আলজাজিরার অনুসন্ধানী প্রতিবেদন

করোনা প্রতিরোধে চীনের ভূমিকা ছিল প্রশ্নবিদ্ধ

ইন্টান্যাশনাল ডেস্ক: | প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারী ২০২১ ১৪:০৯; আপডেট: ১৭ জুন ২০২১ ০৫:৫৬

লকডাউনের পর কর্মব্যস্ত উহান থমকে যায়

কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে চীনের ভূমিকা ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। নিউজ চ্যানেল আলজাজিরার অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে এমনই কিছু এক্সক্লুসিভ তথ্য উঠে এসেছে। চীনের উহানে লক ডাউন শুরুর আগে কয়েকদিনের ভিডিও তুলে ধরা হয়। যেখানে গণমাধ্যমের কাছে রহস্যজনকভাবে কিছু লুকানো হয়।

বেইজিং থেকে আসা দুই অনুসন্ধানী সাংবাদিক ইয়াং জুন এবং চেন উয়ে (ছদ্ম নাম) আল  জাজিরার কাছে তুলে ধরেন তাদের অনুসন্ধানে পাওয়া তথ্য। ভিডিও চিত্রে দেখা যায়, চীনা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি লুকানোর চেষ্টা করছেন।

বর্ণনায় এ দুই সাংবাদিক জানান, উহান কর্তৃপক্ষ ২০১৯ সালে ডিসেম্বরের শেষ দিকে কোভিড-১৯ এর নমুনা পায়। সে সময় উহানের ডাক্তাররা একে নিউমোনিয়া ধরণের কোন রোগ বলে চালিয়ে দেন। তবে সামাজিক মাধ্যমে নতুন রোগে আক্রান্তের খবর ছড়িয়ে পড়ে চীনাদের মাঝে। অনেকেই বাজারে না যাওয়ার স্ট্যাটাস দেন। এরই মাঝে ঘটা করে চীনা উৎসব পালন করে স্থানীয়রা। অনেক লোকের সমাগম হয়।

দিন দিন পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে থাকে। উহানে ঠান্ডা ও শাসতন্ত্রজনিত সমস্যার মত নতুন রোগে মারা যাওয়ার খবর পাওয়া যায় জানুয়ারির মাঝামাঝি। উপায় না দেখে বিনা নোটিশে বন্ধ করে দেয়া হয় উহানের বাজার। এমন খবরে বেইজিং থেকে সংবাদ কভার করতে আসেন দুই সাংবাদিক। উহানের নির্দিষ্ট বাজারে পৌঁছা মাত্র সাংবাদিকের ক্যামেরা-আইডি কার্ড ছিনিয়ে নেয় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা। সরকারী সবার মুখে ছিল মাস্ক। তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ভ্রাম্যমান প্রিজন ভ্যানে। প্রায় কয়েক ঘন্টা জেরার পর বেইজিং থেকে আসা সাংবাদিককে উহান ছেড়ে যাওয়ার আদেশ দেয় পুলিশ।

উহানের বাজার লকডাউন করে পুলিশের কঠোর প্রহরা। যোগ দেয় সেনাবাহিনীও।

এরপর ঘোষণা আসে লকডাউনের। ২০২০ সালের ২৩ জানুয়ারি উহানে লকডাউনের আগে শহর ছাড়ার হিড়িক পড়ে সবার। এক অজানা আতংক ছিল সবার মাঝে। এরপর থেকে ধীরে ধীরে গোটা চীনে শুরু হয় লকডাউন।

আলজাজিরার অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে, নতুন এ ভাইরাস নিয়ে উহান কর্তৃপক্ষ অনেক কিছু লুকিয়েছে। কোভিড-১৯ ভাইরাসকে গুরুত্ব না দিয়ে এড়িয়ে যেতে চেয়েছে। সব কিছু স্বাভাবিক বলে চালিয়ে দিতে চেয়েছিল। অথচ সে সময় গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করলে চীনসহ সারাবিশ্বকে হয়ত এমন সমস্যায় পড়তে হতনা।

এনএফ৭১/জুআসা/২০২১




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর

যোগাযোগ: বাড়ি-৫৪৮, রোড-১৩, বারিধারা ডিওএইচএস, ঢাকা-১২০৬

ফোন : ০২ ৮৪১৮০৭৬

ইমেইল : [email protected]

Developed with by dataenvelope
Top