বাংলাদেশকে তিস্তার পানি দেব না, বললেন মমতা

রায়হান রাজীব | প্রকাশিত: ১০ জুলাই ২০২৪, ১২:৩৩

ছবি: সংগৃহীত

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি জানিয়েছেন, শুষ্ক মৌসুমে তিস্তায় পানি থাকে না। যতটুকু থাকে, তা দেওয়া হলে রাজ্যটির মানুষই পানি পাবে না। গত সোমবার রাজ্য সরকারের সচিবালয় ‘নবান্ন’তে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন মমতা। এসময় বাংলাদেশের সঙ্গে পানি বণ্টন চুক্তি নবায়ন ইস্যুতে মোদি সরকারের সমালোচনাও করেন তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মমতা বলেন, ‘তিস্তায় কি পানি আছে, যে বাংলাদেশকে দেওয়া যাবে? তাহলে তো উত্তরবঙ্গের মানুষ খাওয়ার পানিই পাবেন না। বর্ষার তিস্তার সঙ্গে যেন গ্রীষ্মের তিস্তাকে এক করে দেখা না হয়।’

গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তির নবায়ন নিয়ে মোদি সরকারের সমালোচনা করে মমতা আরও বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গকে উপেক্ষা করে কেন্দ্রীয় সরকার গঙ্গার চুক্তি নবায়ন করতে চাইছে। এটা আমরা মেনে নেব না। কারণ, গঙ্গার পানির সঙ্গেও পশ্চিমবঙ্গের স্বার্থ জড়িত। যেমনটা তিস্তার পানির সঙ্গে। তাই এই চুক্তি করতে হবে পশ্চিমবঙ্গকে নিয়েই।’

তিস্তা চুক্তির নবায়ন নিয়েও কেন্দ্রকে একহাত নেন তিনি। বলেন, গঙ্গার ভাঙনে যেসব বাড়ি তলিয়ে গেছে, সেগুলি নতুন করে তৈরি করে দেয়া হবে বলে জানিয়েছিল। ৭০০ কোটি টাকা আজ পর্যন্ত দেয়নি। ফরাক্কা চুক্তি নবায়ন হলে বিহারও ভাসবে। মূল পক্ষ আমরা। আমাদের জানানো হল না। বলছে তিস্তার পানি দেবে বাংলাদেশকে। পানি রয়েছে যে দেবে? বাংলাদেশকে পানি দিলে উত্তরবঙ্গে কেউ পানীয় জল পাবেন না।

মমতা বলেছেন, ‘সিকিম থেকে নেমে আসা তিস্তা নদীর ১৪টি স্থানে সিকিম সরকার বাঁধ দিয়ে ১৪টি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প চালু করেছে। এতে করে ওই বিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য সব জলই টেনে নিচ্ছে সিকিম সরকার। এই সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে আমরা কেন্দ্রীয় সরকারকে বারবার জানালেও তারা কোনো উদ্যোগ নেয়নি। ফলে সেই সমস্যায় এখনো ভুগছে পশ্চিমবঙ্গের তিস্তাপারের মানুষ।’



বিষয়:


পাঠকের মন্তব্য

মন্তব্য পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Top